জীবন সম্পর্কে কিছু সত্য কথা । নিজেকে যেভাবে গুছিয়ে নিবে !

0
22

জীবন সম্পর্কে কিছু সত্য কথাঃ- আমাদের জিবনে কিছু কঠিন সত্য আছে,যা মেনে নেয়া একটু কঠিন।কিন্তু যত তাড়াতাড়ি আমরা মেনে নেই এবং অনুধাবন করি যে এটা মেনেই আমাদের জিবনটা চলতে হবে ততোই ভালো।

১.অর্থই সকল অনর্থের মূল 

এই কথাটা আমার সবাই কম বেশি জানি।অনেকেই আছো এই কথাটার সাথে একমত।আমি আসলে পুরোপুরি একমত না।কারণ অর্থকে যদি আমরা খারাপ হিসেবেই দেখি,আমরা এটা অর্জন এর পিছে কখনো কষ্ট করবো না।যদি খেয়াল করে দেখি অর্থ কিন্তু আমাদের জিবনের সব ধরনের চাওয়া পাওয়া কে ঠিকঠাক জায়গায় এনে দেয়।এটা সত্যি যে টাকা দিয়ে সুখ হয়তোবা কেনা যায় না।কিন্তু টাকা যদি না থাকে।এটার কারণে কিন্তু অনেক ঝামেলা তৈরি হয়।যেটা তোমার সুখটা কে এমনিতই কিনে নেয়।টাকা থাকলে সুখ যে পাবা এটা কিন্তু না।কিন্তু টাকা না থাকলে অনেক যে বিপদে পড়বা,এটাতে কোনো সন্দেহ নাই।আর মাঝে মধ্যে টাকা দিয়ে এমন কিছু কেনা যা দিয়ে সুখ টাও পাওয়া যায়।

২.তোমাকে সব থেকে ভালো যে বুঝে সেটা হলো তুমি নিজে

অনেকে আমরা ভাবি, ও আমাকে সব থেকে ভালো বুঝে।ওর থেকে ভালো কেউ আমাকে বুঝে না।অথবা আমার ওই বন্ধুটা আমাকে সব থেকে ভালো বুঝে,আমার পরিবারও আমাকে এতোটা বুঝে না।সত্যি হলো তোমাকে সব থেকে ভালো যে বুঝে সেটা হলো তুমি নিজে।এর তুমি যদি নিজের সেই পদবীটা অন্য কাওকে দিয়ে দাও এটার খেসারত কিন্তু তোমাকেই দিতে হবে।

৩.মানুষ আসলে তুমি কি এটা নিয়ে খুব একটা ভাবে না,তুমি কি মূল্য দিতে পারো এটা নিয়ে সবাই ভাবে।

তুমি যদি দেখো পৃথিবীর যত সফল মানুষ।তারা কিন্তু শুধুমাএ নামের জন্য পরিচিত না।তারা কিছু না কিছু করেছে।বিল গেস্ট প্রচুর টাকা পয়সা জোগাড় করেছে।কম্পিউটার এর জগতে বিশাল কিছু করেছে।ওয়ারেন বাফেট ষ্টক মার্কেট এ বড় কিছু নিয়ে এসেছে।মার্ক জোকার সোশ্যাল মিডিয়া জগতে অনেক কিছু নিয়ে এসেছে।এরা কিছু না কিছু একটা করেছে।তার পরে মানুষ এখন ওদের কে নিয়ে নাচা নাচি করে।ওদের বিভিন্ন সুনাম।এরো কতো কি।তারা যদি কিছু না করতো তাহলে কেউ কিছু বলতো না।আসলে আমাদের নিজের কোনো মূল্য  নাই।আমাদের মূল্যায়ন টা হলো অন্য মানুষের জন্য,পৃথিবীর জন্য কি করতে পারি সেটা তে।তুমি যখন মানুষের জন্য কিছু করবা,তখনি মানুষ তোমাকে পাত্তা দিবে।তুমি আসলে কিছু না।তুমি কি দিতে পারবে ওটার উপরি পৃথিবী তোমাকে মার্ক করবে।

৪. মানুষ তোমাকে ভুল বুঝাবেই

তুমি যাই করো না কেনো।যতো ভালে কাজই করো না কেনো।তুমি পৃথিবী উদ্ধার করে ফেললেও কিছু মানুষ তোমাকে ভুল বুঝবেই।এবং তার থেকে অনেক বেশি মানুষ তোমাকে রায় করবেই।

তুমি যাই করো না কেনো মানুষ তোমাকে রায় দিবেই।আমি একবার একজন কে বলছিলাম,আমি এতো কিছু করছি মানুষতো তাও বলছে,এটার পিছনে এই মতলব আছে ঐই মতলব আছে।তখন ওই ব্যক্তি আমাকে বলেছিলো।দেখো বাংলাদেশর যত সফল ব্যক্তি আছে,তারা কিন্তু অনেক নেগিটিভ কথা শুনেছে,তাই বলে কি তাদের মানুষ মনে রাখে না।তারা এই নেগিটিভ কথা শুনেই এই পর্যন্ত এসেছে।তখন সে বলে তুমি যদি সফলতার একদম উপরে উঠতে চাও।তোমার নেগিটিভ কথা গুলো শুনেই,তোমাকে সফলতা অর্জন করতে হবে।

এখন কথা হলো তুমি যদি সফলতা অর্জন করতে চাও, তোমাকে মানুষ ভুল বুঝবে,বিভিন্ন ভাবে রায় দিবে,নেগিটিভ কথা বলবে।সবকিছু মোকাবেলা করে তোমাকে সফলতার দাড় প্রান্তে যেতে হবে।

৫.এর একটা বাস্তব সত্য কথা হলো।

তুমি কারো জন্য কিছু একটা করবা,সে তোমার জন্য কিছু একটা করতে চাবে। বাস্তব হলো,আগে তুমি কারো জন্য কিছু একটা করলা।সে আগে তোমার জন্য যতটুকু করতে চেয়েছিল এখন আরো বেশি করতে চায়।এই জিনিসটা খেয়াল করে দেখো।আমরা যে কাজ গুলো আপাত দৃষ্টি তে ফ্রি তেও করি,ঐ ফ্রি কাজটার ও একটা কারণ থাকে।আমি আসলে এই কারণে করছি,এর পর সে হয় তোবা সে আমার প্রতি একটু হলেও খুশি হবে।আমার এই জিনিশটা যদি মেনে চলি।তখন দেখা যাবে মাঝে মধ্যে হঠাৎ করে কষ্ট লাগে।যে কেউ আসলে ফ্রি তে কাজ করে না,কেউ আসলে এটা করে না।

এই কষ্ট টা তোমার পেতে হবে না।তখন তুমি বুঝেই যাবা পৃথিবীটা আসলেই এরকম।তখন তোমার কষ্ট পাওয়াটা কমে যাবে।

৬.নিজের চিন্তাধারা পরিষ্কার করতে হবে

পৃথিবী কোনো ঔষধি তোমার অসুখই ভালো করতে পারবে না।,যদি না তুমি তোমার চিন্তাধারা পরিষ্কার করো।তুমি তোমার জিবনে যদি নেগিটিভ চিন্তাধারার মানুষের সাথে থাকো।তুমি নেগিটিভ হবাই।তোমার আসে পাশের বন্ধুরা যদি সারাদিন নেগিটিভ স্ট্যাটাস দেয়,ডিপ্রেশন স্ট্যাটাস দেয়,এ হলো না ঐ হলো না।ওরে দিয়ে এটা হবে না।এ ওর পিছনে লেগে আছে।তোমার মনেও নেগিটিভিটির বাসা বাধবে।মনে রাখবে,তুমি যে ঝামেলায় আছো,যে কষ্টেই আছো,যে সমস্যায় আছো,ঐ চিন্তা গুলোকে ঝেড়ে ফেলো।আর ঐ চিন্তা গুলোকে ঝেড়ে ফেলার ভালো উপায় হলো।নেগিটিভ চিন্তা গুলো যে মাধ্যম থেকে আসে।ঐ মাধ্যম গুলোকে দূরে ফেলে দেয়া।কিছু কিছু ক্ষেএে ঐসব মাধ্যম তোমার বন্ধু।ঐসব বন্ধু থেকেও দূরে থাকো।এখন ভাবতেই পারো ওদের থেকে কিভাবে দূরে থাকবো ওরা তো আমার ফেসবুক ফ্রেন্ড।তুমি ওদেরকে অানফলো করো।আমার সময় যখন দেখি কেউ এমন আজেবাজে পোস্ট দিচ্ছে তাকে আমি আনফলো করে দেই।তুমি তাকে আনফলো দিলে তো বুঝতেও পারছে।তুমি নেগিটিভিটি থেকে দূরে থাকতে পারছো।তুমি নেগিটিভিটি দূরে থাকলে তোমার চিন্তাধারাও ঠিক থাকবে।

৭.জিবনের নিজের সমস্যা গুলো তোমার নিজের

মানুষ তাদেরই পছন্দ করে যারা নিজের সমস্যা নিজেই সমাধান করে।এবং সেটা কাওকে বলে না।অনেক মানুষ আছে যারা নিজের ব্যক্তিগত সমস্যা সোশ্যাল মিডিয়াতে বলে বেড়ায়।তোমার ব্যক্তিগত সমস্যার জন্য একটা ব্যক্তিগত সমাধান এর দরকার।সোশ্যাল মিডিয়াতে বলার দরকার নাই।সোশ্যাল মিডিয়ার মানুষের ও দরকার নাই।তাদের মন্তব্যের ও দরকার নাই।তোমার সমস্যাকে তোমাকেই সমাধান করতে হবে।কাওকে দরকার নাই।যত তাড়াতাড়ি তোমার সমস্যা সমাধান করতে পারবে ততোই মানুষ তোমাকে পছন্দ করবে।

৮. সফলতা জিবনের অনেক বড় একটা অধ্যায়

 

তুমি যখন সফলতার পিছনে দৌড়াবা তখন তোমার অনেক কিছুই ছাড় দিতে হবে।তোমার বন্ধুরা ঘুরতে গেলো,মুভি দেখতে গেলো,তুমি যেতে পারলে না।তোমার সময় হবে না।দেশের বাহিরে ঘুরতে গেলো,তোমার ঐ সময় একটা কাজ পরে গেলো।পৃথিবীতে দেখি নাই এমন কোনো সফল মানুষ দেখি নাই যারা দৌড়া-দৌড়ি করে নাই,কষ্ট করে নাই,নির্ঘুম রাত কাটায় নাই।সবাই করেছে।এই কষ্ট বা বলিদানটা তোমার দিতেই হবে।এর কারণে অনেকেই বলে Success is the Lonely.কারণ যে মানুষ গুলা সফল হয়,তাদের ঐ পথ দিয়ে যাবার সময় তারা অনেক কিছু হারায়।কারণ তারা সময় বের করতে পারে না,কথা বলার সুযোগ পায় না।অনেক জায়গা এই জিনিশ গুলো মানিয়ে নিতে হয়।তো সফলতা অনেক কিছু মানিয়ে নেয়ার পরই আসে।

৯.তোমার বন্ধুবান্ধব যত বড় হবে।যোগাযোগ ততই কমে যাবে।

ছোটবেলায় তোমার কয়টা বন্ধু ছিলো?অনেক কম।তখন যোগাযোগ টা কিন্তু অনেক শক্ত ছিল।এখন,ফেসবুকে তোমার কয়টা বন্ধু আছে?নিশ্চই শত শত বা ধরো হাজার হাজার।যোগাযোগ কেমন?দূর দূরান্তে।তো বন্ধুবান্ধব যত বড় হতে থাকে।তোমার লিমিতের সময়ে।সবাইকে সময় দেয়া,সম্ভব হয় না।তোমার সারাদিনে সময় তো ২৪ ঘণ্টা।তোমার বন্ধু যখন বাড়ে,তুমি সময়টাকে যদি একটা পাই হিসেবে ধরো।সবাই তোমার পাই থেকে একটু একটু করে নিতে চায়।তোমার তো এতো বন্ধুকে সময় দেয়া সম্ভবনা।ঠিক তখনি যোগাযোগ টা ফিকে হয়ে পরে।তার মানে যে বন্ধুত্ব নষ্ট হয়ে যায় তা না।সময় এর সাথে সাথে সব কিছু বদলে যায়।এর এটাই বাস্তব।তার মানে এই না যে ঐ বন্ধুরা আগের মত নাই।৫ বছর পর যখন দেখা হয়,তখন মনে হয় সব আগের মতই আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here