বাংলাদেশের ইতিহাস পার্ট – ৩

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ

 

প্রথম জাতীয় পতাকা উওোলন

২মার্চ ১৯৭১। উওোলন করেন আসম আব্দুর রব।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। পতাকা ডিজাইনার- শিব নারায়ণ দাস

স্বাধীনতা ইশতেহার পাঠ 

৩মার্চ ১৯৭১। ইশতেহার পাঠ করেন শাহজাহান সিরাজ। 

বঙ্গবন্ধু ভাষণ 

৭মার্চ ১৯৭১। বঙ্গবন্ধু ভাষণ দেন রেসকোর্স ময়দানে। শেখ মুজিবর রহমানকে বঙ্গবন্ধু উপাধি দেন। তোফায়েল আহমেদ। 

অপারেশন সার্চলাইট

২৫মার্চ ১৯৭১। প্রথম প্রতিরোধ গড়ে তোলে পুলিশ ও ইপিআর। 

মুজিবনগর সরকার গঠন

১০এপ্রিল ১৯৭১। মেহেরপুর জেলার বৈদ্যনাথতলায় (বর্তমান মুজিবনগর)। মুজিবনগর সরকারের শপথ গ্রহণ। ১৭ এপ্রিল ১৯৭১। শপথ পাঠ করান অধ্যাপক এম ইউসুফ আলী। এ সরকারের রাস্ট্রপতি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। অস্থায়ী রাস্ট্রপতি ছিলেন সৈয়দ নজরুল ইসলাম। প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তাজউদ্দীন আহমেদ স্বরাষ্ট্র, এাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রী ছিলেন  এ এইচ এম কামরুজ্জামান। অর্থমন্ত্রী ছিলেন এম মরসুর আলী।

অপারেশন জ্যাকপট 

১৫আগস্ট ১৯৭১। পাকিস্তান নৌবাহিনীকে বিপর্যস্ত করে দিতে সুবিশাল ও সফল একটি অপারেশন। কনর্সাট ফর বাংলাদেশ। ১ আগস্ট ১৯৭১। পণ্ডিত রবি শংকর,জর্জ হ্যারিসন,নিউ ইয়র্ক সিটির ম্যাডিসন স্কয়ারে।

বাংলাদেশকে স্বীকৃতি 

প্রথম দেশ ঃ  ভুটান

প্রথম আরব দেশ ঃ ইরাক

প্রথম ইউরোপীয় দেশ পূর্ব জার্মান 

প্রথম আফ্রিকান দেশ ঃ সেনেগাল। 

চুড়ান্ত বিজয়

১৬ ডিসেম্বর ১৯৭১। মুক্তিবাহিনীর প্রতিনিধি ঃ একে খন্দকার। পাকিস্তানের প্রতিনিধি ঃ জেনারেল নিয়াজী । ভারতের প্রতিনিধি ঃ জগজিৎ সিং আরোরা।

পদক

মোট খেতাবপ্রাপ্ত – ৬৭৭জন। একমাত্র আদিবাসী বীর বিক্রম -ইউ কে চিং মারমা। বিশেষ খেতাবপ্রাপ্ত- ডাব্লিউ এস ওয়ারল্যান্ড। সর্বকনিষ্ঠ খেতাবপ্রাপ্ত- শহীদুল ইসলাম বীর প্রতীক। নারী খেতাবপ্রাপ্ত- তারামন বিবি ও সেতারা বেগম। একাধিক খেতাবপ্রাপ্ত-আফতাব আলী ও আব্দুল ওয়াহেদ চৌধুরী

Add Comment